সেক্স কী? সেক্স এর প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা

সেক্স কী? সেক্স এর প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা
4.9 (98.33%) 12 votes

সেক্স হচ্ছে নারী এবং পুরুষের মধ্যকার বৈশিষ্টসূচক ভিন্নতা যা তারা বিভিন্ন কৌশলে শরীরকে উন্মুক্ত করে একে অপরের সাথে যৌন মিলন বা অন্য আসক্তিতে সামিল হয়। ইংরেজিতে সেক্সের সংজ্ঞা দিলে দাড়ায় – Sex is the act of two or more people using words or touch to sexually excite themselves and/or each other.

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

সেক্স

ইংরেজিতে সেক্স কথাটার অনেক রকম মানে তৈরি হয়। আমরা যদি একে মিলন বা নারী-পুরুষের দৈহিক মিলন দিয়ে বুঝাতে চাই, তাহলে কিন্তু হবে না। এমন ধরাবাধা কোনো সংজ্ঞা দিয়ে ব্যাপারটা বোঝানো যায় না। কারণ – Whether you are straight, lesbian, gay, bisexual, queer or questioning, you have the right to decide what sex means to you. আপনি আরো বিস্তারিত জানতে পড়তে পারেন এই লেখাটি What is sex.

মানুষ শিক্ষিত হোক আর নাই হোক, গ্রামের কিংবা শহরের বা যেমনি হোক, সেক্স বিষয়ে কঠিন রাখঢাক মেনে চলে সবাই। অন্তরে অতীব আগ্রহ থাকলেও স্বীকার করতে চায় না। আবার অনেকে অন্যের বিশেষ করে মেয়েদের পোষাক পরিচ্ছদ চলাফেরা নিয়ে সদা সক্রিয় সমালোচক, মেয়েদের মাল বলতে দ্বিধা করেননা বা নিজে এমন হেন কাজ নাই যা করেন না। যাইহোক, যৌনতা নিয়ে আমাদের সমাজে যে একটা অস্বস্তিকর পরিবেশ বিরাজ করছে, তাতে কোন সন্দেহ নেই। উঠতি বয়সের অধিকাংশ ছেলে-মেয়েদেরই যৌন শিক্ষার সূত্র হয় বন্ধু-বান্ধব, না হয় পর্ন বই অথবা পর্ন সিনেমা। এর ফলে যৌনতা নিয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞান আহরণ না করেই ছেলে-মেয়েরা বড় হচ্ছে শুধু নয়, বেশ একটা বড় বয়স পর্যন্তও যৌনতা নিয়ে নানা ধরনের ভুল ধারণা তাঁরা পোষণ করে চলছে। মানুষের মৌলিক চাহিদা খাদ্য বস্ত্র বাসস্থান চিকিৎসা এসবের পাশাপাশি যৌনতা ও একটি গুরত্বপূর্ণ চাহিদা এবং মানব জীবনের একটি গুরত্বপূর্ণ অভিজ্ঞতা। তবে এই অভিজ্ঞতা যে কারও সাথে করা যায়না, কেননা এর মাধ্যমে দুটি মানুষের আত্মিক একটি যোগ ঘটে। তাই বলা হয় এমন একজন মানুষের সঙ্গে এটি করতে হবে, যাকে আপনি শ্রদ্ধা করেন, আস্থা রাখেন এবং তিনিও আপনার প্রতি সেরকম শ্রদ্ধা এবং আস্থা রাখেন এবং অবশ্যই স্বামী স্ত্রী হতে হবে। যদি আপনি আপনার সঙ্গীর ওপর অথবা সে আপনার ওপর মানসিক বা শারীরিক চাপ প্রয়োগ করে সেক্স করে তখন তা আর স্বাভাবিক সেক্স থাকলোনা ধর্ষণের পর্যায়ে চলে গেল।

সেক্স

সেক্স এর প্রকারভেদ

সেক্সের অনেক প্রকারভেদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো – vaginal sex,anal sex,hugging,kissing,any sexual touching,oral sex. তবে আধুনিক প্রযুক্তির যুগে সেক্সের ধরনে যোগ হয়েছে আরো কিছু। যেমন- রিয়েল সেক্স, ফোন সেক্স,চ্যাট সেক্স ,মাইন্ড সেক্স,সেক্স রোবট ইত্যাদি। রিয়েল সেক্স আবার দুই ধরনের যেমন: বৈধ এবং অবৈধ । স্বীয় স্বামী এবং স্ত্রীর মধ্যে সম্পাদিত যৌনতাই বৈধ সেক্স এছাড়া অন্যান্য সকল রিয়েল সেক্সই অবৈধ যৌন সম্পর্ক ধর্মীয় কারণে। যৌন চাহিদা পূরনে বৈধ সেক্স সম্পাদিত হয় ধর্মীয় বিধান মেনে সে কারনে এখানে যৌন সম্পর্ক সম্পাদনকারীর কারো মনে কখনো পাপবোধ অনুভূত হয় না। অবৈধ রিয়েল সেক্স কোন ধর্মীয় বিধানের ধার ধারে না। অতৃপ্ত যৌন খুধা তৃপ্ত করার জন্য অথবা সখের বসে অথবা টাকা লেনদেনের বিনিময়ে অবৈধ রিয়েল সেক্স সম্পাদিত হয়। এখানে যৌন সম্পর্ক সম্পাদনকারী উভয়ের মনে পাপবোধ কাজ করে যদি তারা ধর্মে বিশ্বাসী হয়।

আধুনিক প্রযুক্তি ব্যাবহার করে অনেক দূরে থেকেও একে অপরকে নিজ চোখে না দেখে পারপষ্পরিক অশ্লীল কথামালা বিনিময়ের মাধ্যমে অর্গানোজমের সুখ অনুভবের নাম ফোন সেক্স। ফোন সেক্স – প্রেমিক প্রেমিকার মধ্যে বা শুধু সখের বশে অথবা টাকা লেনদেনের মাধ্যমে ধর্মীয় বিধানের তোয়াক্কা না করে সম্পাদিত হয় বিধায় তাৎক্ষনিক আপন মনে পাপবোধের অনুভতি নাও আসতে পারে। অপরদিকে চ্যাট সেক্স হলো মুখের কথার বদলে শব্দমালা দিয়ে তৈরী অশ্লীল বাক্য বিনিময়। আর সেক্স রোবট হচ্ছে এমন রোবট যার সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন সম্ভব। এর ভেতর এমন ধরনের ডিভাইস স্থাপন করা আছে যার মাধ্যমে রোবটটি তার সঙ্গীর মধ্যে সত্যিকারের যৌন অনুভূতি সৃষ্টি করতে পারবে। যৌনখেলনা প্রাপ্তবয়স্ক নারী-পুরুষের ব্যবহার্য এক শ্রেণীর সামগ্রী যা যৌনক্রিয়ায় সহায়ক হিসাবে কেউ-কেউ ব্যবহার করে থাকে। রাবারের তৈরি কৃত্রিম লিঙ্গ বা বাতাস দিয়ে ফুলানো যায় এরকম প্লাস্টিকের নারী-পুতুল যৌনখেলনা হিসাবে উল্লেখযোগ্য। এসবের উদ্দেশ্য নর-নারীর যৌনসুখ বৃদ্ধি করা। যৌন উপাচার হিসাবে এগুলোর কার্যকারীতা সীমিত বিধায় এসকল সামগ্রীকে খেলনা হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়। ২০০৯ সালে ‘রিয়েল টাচ’ নামের একটি ডিভাইস বাজারে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। যন্ত্রটির মাধ্যমে মানুষের সংবেদনকে জাগিয়ে তোলা যায়। এটি এক ধরনের ভার্চুয়াল যন্ত্র হলেও এর মাধ্যমে মানুষ সত্যিকারের অনুভূতি পেতে পারে। তবে যন্ত্রটির বিরুদ্ধে স্বত্ব সম্পর্কিত এক মামলার কারণে ২০১৩ সালে এটি বাজার থেকে তুলে নেয়া হয়। মানুষের যৌন অনুভূতি সম্পর্কিত এ ধরনের আরও কিছু যন্ত্র আবিষ্কৃত হলেও এখন পর্যন্ত এ ধরনের পূর্ণাঙ্গ কোনো রোবট তৈরি সম্ভব হয়নি। যুগ পাল্টে যাচ্ছে সেইসাথে পাল্টে যাচ্ছে যৌনতার  সংজ্ঞা এবং প্রকারভেদ।

সবশেষে একটি কৌতুক দিয়ে শেষ করলাম –

ছয় বছরের এক বাচ্চা তার বাবার কাছে এসে জিজ্ঞাসা করে–”বাবা, সেক্স মানে কী?”

“বাবা বেশ চিন্তায় পড়ে গেলেন। ভাবলেন, এসব বিষয়ে কৌতুহলই ছেলেমেয়েদের বিপথে টেনে নেয়। তাই কৌতুহল জেগে উঠার আগেই তার সব বিষয়ে জানা উচিৎ। তাই এই বিষয়ে তিনি একে একে সব বুঝিয়ে বলা শুরু করলেন। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে বাচ্চাকে বোঝালেন, সেক্স কি, বিয়ে কি, জন্মদানের প্রক্রিয়া, যৌন সম্পর্ক করার প্রয়োজনীয়তা, বিয়ের আগে যৌন সম্পর্ক করার নিষেধাজ্ঞা… ইত্যাদি ইত্যাদি…।

সব কথা শেষে ছেলে বললো, “সবই বুঝলাম বাবা। কিন্তু যেটা বুঝতে চেয়েছিলাম সেটাই তো বুঝলাম না।” এই বলে সে দৌড়ে গিয়ে স্কুলের এডমিশন ফর্ম এনে দেখালো। যেখানে লেখা– Sex: Male/Female

832 total views, 1 views today

এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

About ইমন

আমি মহা মানব নই, আমি একজন সাধারণ মানুষ। তাই আমার এপিটাফ হবে আমার মতই সাধারণ, কালের গর্ভে এটিও হারিয়ে যাবে, যেমনটা হারায় একজন সাধারণ মানুষ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন