যৌন মিলন নিয়ে কিছু অজানা তথ্য জেনে নিন

যৌন মিলন নিয়ে কিছু অজানা তথ্য জেনে নিন
4.9 (97.14%) 14 votes

যৌন মিলন স্বামী-স্ত্রীর পরস্পরের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশের এক গুরুত্বপূর্ণ দিক।  যৌন মিলন শারীরিক প্রয়োজনীয়তার এক প্রকার বহিঃপ্রকাশও বটে। কিন্তু আমাদের সমাজে যৌন শিক্ষার সম্যক জ্ঞানের অভাবে অনেক কিছুই অনেকের জানা নেই। পৃথিবীর সব ধর্মেই বিবাহ ছাড়া যৌন মিলন বা শারীরিক সম্পর্ককে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে রয়েছে কড়া নিষেধ। এমনকী এ কাজ যে করবে তার জন্য নির্ধারিত রয়েছে কঠিন শাস্তি। এই বিধানের পেছনে নিশ্চয়ই কারণ রয়েছে। আর কারণটি হলো সামাজিক, ধর্মীয় ও মানসিক অবক্ষয় থেকে নিজেকে দূরে রাখা। আমাদের সমাজে এমন অনেক পুরুষ রয়েছেন যারা শুধুমাত্র নারীদেহ ভোগ করার বা বিবাহ বহির্ভূত যৌন মিলন এর উদ্দেশ্যেই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন এবং কাজ হাসিল হয়ে গেলে সম্পর্কের দায়ভার নিতে চান না। নারীরাও যে এমন করে না তা নয়,তবে তুলনামূলকভাবে এমন নারীর সংখ্যা কম। এই আলট্রামডার্ন ক্যারিয়ারমুখী জীবনে আপনি হয়তো সঙ্গীর কথা বেমালুম ভুলেই গেছেন। রাতদিন শুধু ক্যারিয়ার আর ক্যারিয়ার। এভাবে সঙ্গীকে দীর্ঘ অবহেলার কারণে বিষয়টি সংসারে নানা অশান্তি এমনকি বিচ্ছেদও ডেকে আনতে পারে। আসক্তি জন্মাতে পারে মাদকে, অপকর্মে কিংবা অন্য কোনো অপরাধে। এ তো গেলো শারীরিক মিলন নিয়মিত না করার সামান্য কুফল, এর চেয়ে ভয়াবহ পরিণতিও আসতে পারে। আসুন জেনে নেয়া যাক, যৌন মিলন বা ভালোবাসা প্রকাশের দিক ছাড়াও স্বামী স্ত্রীর যৌন মিলনের আর কি কি গুণ আছে সেসব সম্পর্কে।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

যৌন মিলন

যৌন মিলন স্বাস্হ্যের জন্য উপকারী

১. যে নারীরা প্রায়ই যৌন মিলন করেন তাদের স্মৃতিশক্তি প্রখর হয়। আর্কাইভ অফ সেক্সুয়াল বিহেভিওর এর এক সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে, নারীরা যতবেশি যৌন মিলন করেন ততই তারা কোনো শব্দ মুখস্থ করার ক্ষেত্রে ভালো পারফর্মেন্স করেন। গবেষকরা মনে করেন, যৌনতা নারীদের মস্তিষ্কের হিপ্পোক্যাম্পাস এর কোষ বৃদ্ধিতে উদ্দীপনা যোগায়। মস্তিষ্কের এই এলাকাটি স্মৃতি সংরক্ষণের কাজ করে।

২. যৌন মিলন আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারে… অপ্রত্যাশিত বা অনাকাঙ্ক্ষিত যৌনতা কমবয়সী নারীদের জন্য ক্ষতিকর, গতানুগতিক এই ধারণাটি ঠিক নয়। বরং সোশাল সাইকোলজিক্যাল অ্যান্ড পার্সোনালিটি সায়েন্স এর একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব কলেজ শিক্ষার্থী এ ধরনের যৌন মিলন উপভোগ করেন তাদের আত্মবিশ্বাস বেশি। যদি তারা প্রায়ই তা উপভোগ করে, কিন্তু তারা যদি তা পছন্দ না করে তাহলে প্রায়ই যৌনতা উপভোগ করাটা উপকারী হবে না। এর মানে হলো আপনাকে আপনার আকাঙ্ক্ষা গুলোর ব্যাপারে সৎ হতে হবে।।

৩. স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সেক্সে বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সঞ্চালিত হয় তার ফলে যৌন মিলন এক প্রকার ব্যায়ামের কাজ করে৷ পাশাপাশি যৌন মিলনে শরীর থেকে প্রচুর ক্যালোরি খরচ হয়, ফলে কোলেস্টেরলের মাত্রা কম হয়, রক্তপ্রবাহ ভালো হয়। এছাড়া যৌন মিলন রক্তচাপ ঠিক রাখার জন্য ভালো। ৫৭ থেকে ৮৫ বছর বয়সে যৌন মিলন করলে নারীরা উচ্চরক্তচাপে ভোগেন না। জার্নাল অফ হেলথ অ্যান্ড সোশাল বিহেভিওর এ প্রকাশিত এক গবেষণায় এমনটাই বলা হয়েছে। পাশাপাশি একটি ট্রোজান এবং সেক্স ইনফরমেশন এবং এডুকেশন কাউন্সিল অফ কানাডার জরিপ মতে, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যৌনতা আরো রোমাঞ্চকর হয়ে ওঠে।

৪. সারাদেশে ৮০ থেকে ৯০ ভাগ নারী পুরুষ যৌন রোগে আক্রান্ত তাদের মধ্যে বেশির ভাগ ই হচ্ছে অবিবাহিত যারা বিবাহিত এবং নিরাপদ যৌন মিলন করে কেবল তারাই যৌন রোগ থেকে নিরাপদ আছে।

৫. সম্ভবত এটা কোনো বিস্ময়ের বিষয় নয় যে, যৌন মিলন আনন্দময় অনুভূতি সৃষ্টিকারী হরমোনের নিঃসরণ ঘটায়। জার্নাল অফ সেক্সুয়াল মেডিসিনের গবেষণা মতে, চুড়ান্ত যৌন সুখানুভূতি ডোপামিন এবং অক্সিটোসিন এর মতো হরমোনের নিঃসরণ ঘটায়। কিন্তু এই উপকারিতাগুলোর অভিজ্ঞতা লাভের জন্য আপনার চূড়ান্ত যৌন সুখানুভূতি লাভেরও কোনো দরকার নেই। বরং শুধু যৌন উত্তেজনা সৃষ্টির ফলেই এই হরমোনগুলো নিঃসরিত হয়। একই রাসায়নিকগুলো মাংসপেশির খিঁচুনি লাঘবেও সহায়ক হতে পারে।

৬. যৌন মিলন  আপনার সার্বিক শারীরিক সুস্থতার সহায়ক হতে পারে। অ্যাডাম অ্যান্ড ইভ এর একটি গবেষণায় দেখা গেছে, ক্রীড়াবিদরা যত বেশি যৌন মিলন করেছে ততই তারা শক্তি, তৎপরতা এবং গতি প্রদর্শন করেছে। পাশাপাশি ফ্রন্টিয়ার্স সাইকোলজিতে প্রকাশিত একটি মেটা-বিশ্লেষণে দেখা গেছে, কোনো প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ঠিক আগে যৌন মিলন করলে হয় কোনো প্রভাব পড়ে না আর নয়তো শারীরিক সুস্থতা জোরদার হয়। যা বড় কোনো খেলার আগে যৌনতার প্রভাব সম্পর্কিত জনপ্রিয় চিন্তাগুলোর সম্পূর্ণ বিপরীত।

ভোরে যৌন মিলন করার উপকারিতা

আপনি কি ভোরে ওঠেন? আপনি কি বিবাহিত? তাহলে একটা বিষয় মাথায় রাখার চেষ্টা করুন, বাস্তবায়িত করতে পারলে আরও ভালো৷ ভোরে যৌন মিলন কমিয়ে দেয় হৃদরোগের ঝুঁকি৷ শুনে একটু অদ্ভুত মনে হলেও কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে ভোরের যৌন মিলন স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী৷ ভোরে শরীরে রক্ত চলাচলও ভালো হয়৷ তবে এই বিষয়টি কার্যকরী করতে হলে কিন্তু আপনাকে সবার আগে যা করতে হবে তা হল ঘুমোতে যাওয়ার আগে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হওয়া৷ ভোরের মিলন অপরিচ্ছন্নতা যেন বাধা সৃষ্টি না করতে পারে৷

যৌন মিলন করার আগে যেসব কাজ করা ঠিক নয়

অনেকে আছেন যৌন মিলন করার আগে মাদক গ্রহণ করেন। কিছু কিছু মাদকদ্রব্য আছে যেগুলো কাম উদ্দীপনা বাড়িয়ে দেয়, কিন্তু মাদক গ্রহণ করা মোটেও ভালো কিছু নয়,তাই এড়িয়ে চলাই ভালো৷ আবার আমাদের অনেকের অ্যালার্জি দূর করতে অ্যান্টিহিস্টামিন ওষুধ গ্রহণ করতে হয়৷ যেমন সর্দি হলে তা বন্ধ করার জন্য৷ কিন্তু এই ওষুধ গ্রহণ করলে যোনী শুষ্ক হয়ে যায়৷ যৌন মিলন করার পর প্রস্রাব করলে ব্যাকটিরিয়া প্রস্রাবের সঙ্গে বেরিয়ে যায়৷ কিন্তু যদি আগে করেন, তাহলে নারীদের ইউরিনারি ট্র্যাক ইনফেকশন বা মূত্রনালীতে সংক্রমণ হতে পারে৷ এমনটাই জানিয়েছেন ইউরোলজিস্টরা৷ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতে, সেক্স করার ঠিক আগে গোপনাঙ্গ শেভ করা উচিত হয় ৷ এ থেকে ব্যাকটিরিয়ার সংক্রমণ সহজে ছড়িয়ে পড়তে পারে৷

সারা জীবনে কতবার যৌন মিলন করেন একজন মানুষ

গবেষণায় দেখা গেছে মাত্র তিন শতাংশ মানুষ প্রতিদিন যৌন মিলন করেন।  যৌন মিলন নিঃসন্দেহে আমাদের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। কখনও কি ভেবে দেখেছেন সারা জীবনে মানুষ ঠিক কতবার সেক্স করতে পারে বা করার ক্ষমতা রাখে? এ প্রশ্নকে উপজীব্য করেই পরিচালিত হয়েছে গবেষণা। সম্প্রতি এক গবেষণায় প্রায় ২ হাজার নারী এবং পুরুষের যৌন জীবন নিয়ে জরিপ করা হয়। জরিপে অংশ গ্রহণ কারীরা গবেষকদের সামনে তাদের যৌনমিলনের সঠিক তথ্যাদি প্রকাশ করেন। যুক্তরাজ্যে করা এই গবেষণা থেকে চমকপ্রদ সব তথ্য বেরিয়ে এসেছে। গবেষণায় পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, সপ্তাহে গড়ে পাঁচ জনে একজন মানুষ একবার সেক্স করেন। মাত্র তিন শতাংশ মানুষ প্রতিদিন যৌন মিলন করেন। যুক্তরাজ্যের নাগরিকরা সারা জীবনে গড়ে ৫,৭৭৮ বার সেক্স  করে থাকেন। ১৬ বছর থেকে ৬০ বছর পর্যন্ত সারা জীবনে মানুষ যৌন মিলনের জন্য ২,৮০৮ ঘন্টা ব্যয় করে যা পুরো জীবনের ০.৪৫ শতাংশ সময়। এটি পুরো জীবনের মাত্র ১১৭টি দিনের সমান।

ইসলামের দৃষ্টিতে যৌন মিলন

সকল নেয়ামতের মধ্যে সবচাইতে তীব্র আনন্দের নেয়ামত স্বামী-স্ত্রীর **সহবাস**। আল্লাহ তায়ালা সহবাসের আহবায়ক করেছেন পুরুষ মানুষকে। সাধারণত স্ত্রী লাজুক স্বভাবের হয়ে থাকে এবং সহজাতভাবে সহবাসের জন্য তাড়িত হয় না। কেবলমাত্র যখন তার স্বামী তাকে বুকে টেনে নেয় ও নানাবিধ উপায়ে আদর-সোহাগ করতে থাকে, তখনই স্ত্রীর দেহ-মনে যৌন মিলন করার কামনা জেগে উঠে। সূরা বাকারার ২২৩ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে-তোমাদের স্ত্রীরা হলো তোমাদের জন্য শস্য ক্ষেত্র। তোমরা যেভাবে ইচ্ছা তাদেরকে ব্যবহার কর। মদিনার ইহুদিদের মধ্যে একটা কুসংস্কার এই ছিল যে, কেউ যদি তার স্ত্রীর সাথে পেছন দিক থেকে যোনিপথে সঙ্গম করত তবে বিশ্বাস করা হতো যে এর ফলে ট্যারা চোখ বিশিষ্ট সন্তানের জন্ম হবে। মদিনার আনসাররা ইসলাম পূর্ব যুগে ইহুদিদের দ্বারা যথেষ্ট প্রভাবিত ছিল। ফলে আনসারগণও এই কুসংস্কারে আচ্ছন্ন ছিলেন। মক্কাবাসিদের ভেতর এই কুসংস্কার ছিল না। মক্কার মুহাজিররা হিজরত করে মদিনায় আসার পর, জনৈক মুহাজির যখন তার আনসার স্ত্রীর সাথে পেছন দিক থেকে সঙ্গম করতে গেলেন, তখন এক বিপত্তি দেখা দিল।
আনসার স্ত্রী এই পদ্ধতিকে ভুল মনে করে জানিয়ে দিলেন রাসূলুল্লাহ (স.) এর অনুমতি ব্যতীত এই কাজ তিনি কিছুতেই করবেন না। ফলে ঘটনাটি রাসূলুল্লাহ (স.) পর্যন্ত পৌঁছে গেল।এ প্রসঙ্গেই কুরআনের আয়াত (২:২২৩) নাযিল হয়, যেখানে বুঝানো হচ্ছে- সামনে বা পেছনে যেদিক দিয়েই যোনিপথে গমন করা হোক না কেন, তাতে কোন সমস্যা নেই। শস্যক্ষেত্রে যেদিক দিয়ে বা যেভাবেই গমন করা হোক না কেন তাতে শস্য উতপাদনে যেমন কোন সমস্যা হয় না, তেমনি স্বামী তার স্ত্রীর যোনিপথে যেদিক দিয়েই গমন করুক না কেন তাতে সন্তান উতপাদনে কোন সমস্যা হয় না এবং এর সাথে ট্যারা চোখ বিশিষ্ট সন্তান হবার কোন সম্পর্ক নেই।

500 total views, 3 views today

এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন