মোবাইল টিপস – যেভাবে মোবাইল ফোনের গতি বাড়াবেন

মোবাইল টিপস – যেভাবে মোবাইল ফোনের গতি বাড়াবেন
5 (100%) 4 votes

মোবাইল টিপস আপনার নিত্যদিনের ফোন ব্যবহারের সময় অনেক কাজে দেবে। আন্ড্রয়েড মোবাইল টিপস জানাটা খুবই গুরত্বপূর্ণ কারণ আমাদের দেশে দিন দিন ফোনের জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে। বেশ কিছু দিন ব্যবহারের পর যে কোন অ্যান্ড্রয়েড ফোন ও ট্যাবের পারফর্মেন্স ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে। আমরা কখনো চাইনা আমাদের প্রিয় স্মার্টফোন স্লো কাজ করুক। কিন্তু, অনেকেই দেখবেন এ সমস্যায় ভুগছেন। এসব সমস্যার বেশ কিছু কারন রয়েছে। এসব কারন এড়িয়ে চললে এ সমস্যা থেকে সমধান পাওয়া সম্ভব। আর অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের গতি বাড়ানোর জন্য বেশ কিছু মোবাইল টিপস রয়েছে। এমন কিছু পদ্ধতি আছে যার মাধ্যমে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়াতে পারবেন। এবার চলুন আমরা দেখি কিভাবে আমরা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি বাড়াতে পারি –

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

মোবাইল টিপস

মোবাইল টিপস (১) – অনেকের মোবাইলে প্রচুর পরিমানে এন্ড্রয়েড অ্যাপস ইন্সটল করতে দেখা যায়। অ্যান্ড্রয়েডে অনেক অ্যাপস থাকে আমাদের যেগুলোর প্রয়োজন পড়ে। কিন্তু অনেকেই আছেন এসব অ্যাপস অযথা ইন্সটল করে রেখেছেন। অর্থাৎ, অ্যাপস ব্যবহার না করলেও অ্যাপস ইন্সটল করে রাখেন। যদি আপনার আন্ড্রয়েড ফোন এ অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস থাকে তাহলে সেগুলো মুছে ফেলুন। যদি কখনো প্রয়োজন হয় পরে না হয় এসব অ্যাপস আবার ইন্সটল করে নিবেন। কেননা, অতিরিক্ত অ্যাপস আপনার আন্ড্রয়েড ফোনের গতি কমিয়ে দিবে। না। এসব কিন্তু ঠিকই ফোনের র‍্যাম দখল করে স্পিড কমিয়ে ফেলে। তাই এসব অ্যাপসকে হয় আনইন্সটল করে দিতে হবে না হয় অকার্যকর করে দিতে হবে।

মোবাইল টিপস (২) – অনেকের অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ অপ্রয়োজনীয় ফাইল দিয়ে পূর্ণ করা থাকে, যা অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমাতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ থেকে অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলেট করে দিন। এতে, একদিকে যেমন আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের গতি বাড়বে অন্যদিকে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের স্টোরেজ খালি হবে।

মোবাইল টিপস (৩) – দীর্ঘক্ষন চলার পর স্মার্ট ফোনটিকে রিস্টার্ট করতে হবে। রিস্টার্ট করে নতুন ভাবে চালু হওয়ার ফলে ক্যাশ ফাইলগুলো ডিলিট হয়ে যায় ও বিভিন্ন অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন বন্ধ থাকে। ফলে র‍্যামের গতি কিছুটা হলে বৃদ্ধি পায়।

মোবাইল টিপস (৪) – অ্যান্ড্রয়েডের অ্যাপসগুলো আপডেট রাখা খুব জরুরি। আপডেট না রাখলে আপনার ফোনের গতি মন্থর হওয়ার কারণ হতে পারে এই অ্যাপসগুলো। এ জন্য আপনাকে তেমন কিছুই করতে হবে না। যে কোনো অ্যাপসের নতুন আপডেট আসলে সেই অ্যাপসটি আপনার কাছে অনুমতি চাইবে। আপনার কাজ শুধু সেটাকে অনুমতি দেয়া। অবশ্য সেজন্যে আপনাকে কিছু পরিমাণ ডাটা খরচ করতে হবে।
অপ্রয়োজনীয় ওয়াইগেট ডিলিট করা ডিভাইসের গতি বৃদ্ধি করার জন্য অপ্রয়োজনীয় ওয়াইগেট ও পেজগুলোও ডিলিটি করা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। কারণ এগুলো প্রয়োজন ছাড়াই মেমোরি দখল করে রাখে।

মোবাইল টিপস (৫) – গুগল প্লে-স্টোরে অসংখ্য লাঞ্চার পাবেন সেগুলোর মধ্যে রেটিং দেখে পছন্দমত একটি ইন্সটল করে ফেলুন। ডিভাইসের স্টক লাঞ্চারের থেকে এসব লাঞ্চারে তুলনামূলক বেশি গতি পাবেন। গতি বৃদ্ধি ছাড়াও বাড়তি হিসেবে অনেক লাঞ্চারেই আপনি ফোনের চেহারা নিজের মতো করে সাজানোর সুযোগ পাবেন।

মোবাইল টিপস (৬) – প্লে স্টোরে আপনার ফোনের প্রয়োজনীয় অ্যাপ্লিকেশন খুঁজে দেখুন। যেমন পুরোনো ফোনের জন্য অটো টাস্ক কিলার অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। এটা কিছু সেকেন্ড বা মিনিট পরে কিছু বাছাইকৃত অ্যাপ্লিকেশন বন্ধ করে দিবে, তাতে করে আপনার র‍্যাম কিছুটা খালি হবে এবং ফোন দ্রুত চলবে। একটি ভালো এন্টিভাইরাস অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করে নিন, এটা আপনার ফোন স্ক্যান করে ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার খুঁজে বের করবে যেগুলো আপনার ফোনটি স্লো করে দেয়।

মোবাইল টিপস (৭) – আমরা অ্যান্ড্রয়েডে বেশ কিছু অ্যাপস দেখি যেসব অ্যাপস অটো স্টার্ট আপ ফিচার সমৃদ্ধ। অর্থাৎ, অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস চালু হওয়ার সাথে সাথে এসব অ্যাপস স্বয়ংক্রিয় ভাবে চালু হয়ে যায়। যাদের র‌্যাম কম তাঁরা এ ধরনের অ্যাপস যথাসম্ভব কম ব্যবহার করার চেষ্টা করুন। কেননা, এতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস এর গতি কমে যেতে পারে। এছাড়া, আপনি চাইলে এসব অ্যাপস এর স্বয়ংক্রিয় ভাবে স্টার্ট আপ বন্ধ করতে পারেন। এছাড়া, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের অ্যাপস সমূহ সব সময় আপডেট করার চেষ্টা করুন। যখনই আপনার ব্যবহৃত অ্যাপস এর আপডেট করার জন্য নোটিফিকেশন পাবেন, তখনই অ্যাপসটি আপডেট করার চেষ্টা করবেন। এতে, আপনি দুইটি সুবিধা পাবেন। প্রথমত, আপনার ফোনের গতি বাড়বে আর অ্যাপস আপডেট করার ফলে আপনি অ্যাপস থেকে হয়ত বাড়তি সুবিধা পাবেন।

মোবাইল টিপস (৮) –  ডিভাইসের গতি বৃদ্ধি করার জন্য আপনার মোবাইল ফোনে ডেভলপার অপশন চালু করতে হবে। এজন্য ফোনের সেটিংস অপশন থেকে অ্যাবাউট ফোনে যেতে হবে। সেখান থেকে ফোনের বিল্ড নম্বরে বার কয়েক চাপ দিতে হবে। তাহলেই আপনার ফোনে ডেভলপার অপশন চালু হবে। এরপর বাকি কাজগুলো ধাপে ধাপে করলেই আপনার ফোনের গতি বৃদ্ধি পাবে।

মোবাইল টিপস (৯) – ডিভাইসের গতি কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ ফোনের অ্যানিমেশন। অ্যানিমেশন অতিরিক্ত পরিমাণ বেশি হলে ফোনের গতি কমে যায়। এ কারণে কমিয়ে রাখতে হবে। সবচেয়ে ভালো হয় অ্যানিমেশন বন্ধ করে দিলে। এটা করার জন্য আপনাকে সেটিংস থেকে ডেভলপার অপশনে ঢুকতে হবে। সেখান থেকে উইন্ডো অ্যানিমেশন স্কেল খুঁজে বের করে তা কমিয়ে দিতে হবে।

মোবাইল টিপস (১০) – অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের ব্রাউজার ক্যাশ ধীরে ধীরে ফোনের গতি কমিয়ে দেয়। ফোনের গতি বৃদ্ধি করতে হলে আপনাকে ব্রাউজারের ক্যাশ পরিষ্কার করতে হবে। এজন্য আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসের বাউজারের সেটিংস অপশনে যেতে হবে। সেখান থেকে ক্লিয়ার ক্যাশ অপশন থেকে সব কিছু মুছে ফেলতে হবে।

মোবাইল টিপস (১১) – মোবাইল ফোনের স্টোরেজ বাড়ানোর জন্য মেমোরি কার্ড ব্যবহার করি। নিম্নমানের মেমোরি ব্যবহার করার ফলে একদিকে যেমন অ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কমে যায় অপরদিকে মেমোরি কার্ড ডেটা ট্র্যান্সফারের গতি কম থাকে। এক্ষেত্রে, আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল কম্পিউটার এ ব্যাকআপ রেখে মেমোরি কার্ড ফরম্যাট করে আবার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আবার আপনি যদি স্লো এসডি কার্ড ব্যবহার করেন তবে এটি আপনার ডিভাইসকে স্লো করে দিবে।

মোবাইল টিপস (১২) – যদি আপনার অ্যান্ড্রয়েডের অবস্থা অতিরিক্ত খারাপ হয়ে থাকে, তাহলে আপনি ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করে নিতে পারেন। ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করার আগে অবশ্যই আপনার আন্ড্রয়েড এর সমস্ত ডাটা এর ব্যাকআপ নিয়ে রাখবেন। কেননা, ফ্যাক্টরি ডাটা রিসেট করলে ফোনের সমস্ত ডাটা মুছে যায়। এরপর, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসটি সবকিছু নতুন ভাবে সেট-আপ করুন।

122 total views, 1 views today

এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন