প্রেম করার টিপস জানুন সহজেই প্রেম করুন

প্রেম করার টিপস জানুন সহজেই প্রেম করুন
4.8 (96%) 5 votes

প্রেম করার টিপস জানা থাকলে সহজেই প্রেম করা যায়। কাউকে পটানো অনেক কঠিন আবার কৌশল জানা থাকলে একদম সহজ। তবে মনে রাখবেন সবাই চায় তাদের বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড একটু স্মার্ট ভদ্র ও ভালো হোক। যুগযুগ ধরে প্রেম নিয়ে কত গল্প উপন্যাস আর কবিতা লেখা হয়েছে। এই প্রেম ভালবাসার বিষয়টা যুগ যুগ ধরে হয়ে আসছে। বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  বন্ধুত্ব হয় প্রেম হয়। মানুষ ফেসবুক,টুইটার বা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বন্ধু পায়। যদিও বন্ধুত্ব এবং প্রেম এক নয় কিন্তু নারীর প্রতি পুরুষের বা পুরুষের প্রতি নারীর আকর্ষন সেটা জন্ম আজন্ম ধরে চলে আসছে। আর এরই ফল স্বরুপ আপনি নিজেও কারো না কারো সাথে প্রেম করেন বা কারো প্রেমে পড়েছেন বা কারো প্রেমে পড়বেন। স্কুল জীবন ক্লাসের কোন মেয়ের প্রতি আপনার দুর্বলতা ছিল বা পাড়ার কোন মেয়েকে আপনি চুপিচুপি দেখছেন বা কোন মেয়েকে নিয়ে আপনি স্বপ্ন দেখেছেন কিন্তু তাকে বলতে পারেননি। তাই আজকে আপনাদের মাঝে শেয়ার করলাম প্রেম করার টিপস।

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

প্রেম করার টিপস

প্রেম করার টিপস হিসাবে গুরত্বপূর্ণ বিষয়

মানুষের দৃষ্টি হল প্রেমের প্রথম রাস্তা। রাস্তায় কোন মেয়েকে দেখে ভাল লাগে আর এতেই আপনি পিছু নেন স্কুল কলেজ এমনকি তার বাড়ি পর্যন্ত। আপনার যেহেতু তাকে ভাল লাগে তো তাকেও তো আপনার ভাল লাগতে হবে। নাকি অগোছালো ভাবে চলে গেলেন আর বলে দিলেন তাকে আপনার ভাল লাগে। তাই আপনার পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন হওয়া জরুরী। এর জন্য আপনাকে বুঝতে হবে কি ভাবে ড্রেসআপ করলে আপনাকে ভাল লাগে। চুল কিভাবে কাটলে ভাল লাগে। গায়ে গন্ধ আছে কিনা। ব্রাশ নিয়মিত হয় কিনা বা হলেও বন্ধুরা মুখের গন্ধে কাছেই আসেনা তাইলে তো প্রেম করার টিপস পড়ে কোনো কাজে আসবেনা। সবাই তো আর শাহরুখ সালমান হয়ে জন্মায় না । তাই বলে কি সবাই প্রেম করে না। সুতরাং নিজের দিকে নিজে খেয়াল করুন। নিজেকে আরো একবার আবিষ্কার করে দেখুন।

প্রেম করার টিপস (১) – প্রেম করতে হলে আপনাকে অবশ্যই সাহসী হতে হবে। তবে সাহসী হয়ে আবার সিনেমার নায়কের মতো মারপিট করতে যাবেন না। সাহস না থাকলে তো আপনার পছন্দের মানুষের সাথে কথাই বলতে পারবেনা।

প্রেম করার টিপস (২) – প্রেম করতে চাইলেহীনম্মন্যতায় ভুগলে হবে না। নিজের উপরে বিশ্বাস রাখটাই এই প্রেম করার মূলমন্ত্র।

প্রেম করার টিপস (৩) – মেয়ে দেখলেই হামলে পড়বেন না। পার্টি হোক বা পারিবারিক অনুষ্ঠান অথবা বন্ধুমহলে পছন্দের মানুষকে চোখ দিয়ে মাপুন। দেখার চেষ্টা করুন তাঁর নজর কোথায়। পারলে, তাঁর দৃষ্টি পথের আশে পাশেই থাকুন। আগ বাড়িয়ে পরিচয় দেওয়ার চেষ্টা করবেন না।

প্রেম করার টিপস (৪) – আপনার হালকা পরিচিত হলে তবেই এগোন পরিচয়-পর্বের দিকে। তার দিকে তাকিয়ে হাসুন। আড়চোখে বোঝার চেষ্টা করুন, সে আদৌ আপনাকে খেয়াল করছে কি না। পারলে তার পরিচিত গণ্ডির মধ্যে ঢোকার চেষ্টা করুন। সুযোগ বুঝে হাসিমুখে হাই বা হ্যালো বলুন। এমন আচরণ করবেন না যে, আপনাকে তাঁর বিরক্তিকর বলে মনে হয়। পরিচয় পর্ব শেষ হলে জানার চেষ্টা করুন, তার কাজ ও পড়াশোনা নিয়ে। এর বেশি এগোবেন না। যদি, মনে হয় আরও একটু কথা বলা যাচ্ছে, তাহলে কিছু হাসির কথা বলুন। বোঝানোর চেষ্টা করুন আপনি একজন হাস্যপ্রিয় মানুষ।

পরিচয়ের এই পর্বটাকে এগিয়ে নিয়ে চলুন। একবারও বোঝানোর চেষ্টা করবেন না আপনি শুধু তার সঙ্গেই কথা বলতে আগ্রহী। পারলে তার আশপাশে থাকা অন্য মেয়েদের সঙ্গেও পরিচয় করার চেষ্টা করুন।

এবার সুযোগ বুঝে কথার আড়ালে তার সঙ্গে মোবাইল নম্বরটা এক্সচেঞ্জ করে নিন। জেনে নিন ফেসবুক চ্যাট,এসএমএস, হোয়াটস অ্যাপ না সরাসরি মোবাইলে কথা বলা,কোনটা তার বেশি পছন্দ? কোন সময়ে এসএমএস পাঠালে তিনি বিরক্ত হবেন না? সেই সঙ্গে জানুন, মোবাইলে তাকে কোন সময়ে বেশি পাওয়া যেতে পারে। পারলে জানিয়ে দিন, আপনাকে কাজের খাতিরেই সবসময় মোবাইল খোলা রাখতে হয়। দিন হোক বা রাত যে কোন সময়েই আপনাকে মোবাইলে পাওয়া যায়।

প্রেম করার টিপস (৫) – পছন্দের মানুষের ফোন নম্বরটা না হয় জোগাড় করলেন কিন্তু এবার কি করবেন? পারলে তার অন্য কোনও বান্ধবীদের মোবাইল নম্বর গুলিও সংগ্রহে রাখুন। এরপর পছন্দের মানুষের সঙ্গে তার বান্ধবীদেরও দুই একটা মজার মেসেজ পাঠান। এমন এমন কিছু মেসেজ পছন্দের মানুষটিকে পাঠান, যা তার বান্ধবীদের পাঠাননি। একটু চালাকিও করতে পারেন, কিছু জনকে এমন মেসেজ পাঠান, যা আপনার পছন্দের নারীটিকে পাঠাবেন না। দেখবেন, খেলা জমে গেছে।

পছন্দের মানুষটির সাথে সাক্ষাতের সময়ে জানার চেষ্টা করুন, কেমন ছিল মেসেজ। তার বান্ধবীদেরও জিঞ্জেস করুন তাদের কেমন লেগেছে। পছন্দের নারীর মন বোঝার চেষ্টা করুন অন্যদের পাঠানো মেসেজ তার কাছে না আসায় সে রাগ করেছে কি না। তাকে বুঝতে শিখুন। আপনি যদি তার সাথে কথা বলতে পারেন তো সেটা সে কিভাবে নিচ্ছে। আগেই বলেছি মেয়েদের বুঝা একটু কঠিন। সে হয়ত আপনাকে বুঝতে দিবেনা অনেক কিছুই। তার দৃষ্টি আকর্ষনের চেষ্টা করুন। আর ভাবুন কিভাবে কথা বলবেন।

প্রেম করার টিপস (৬) – সন্ধ্যায় ফোন করে বসবেন না। একটু রাত করে মেসেজ পাঠিয়ে জানতে চান, ফোন করা যাবে কি না। উত্তর এলে ভালো, না এলেও ভালো। মিনিট দশেক পরে কপাল ঠুকে ফোনটা করেই ফেলুন। কথার ফাঁদ এমন পাতুন যেন পরম বন্ধুর মতো কথা বলছেন। ফোনে হাসি-ঠাট্টা যখন চরমে তখনই বলুন পরে কথা হবে, এখন কাজ আছে।

পরে দেখা হলে প্রথমেই গত রাতের কথোপকথন আচমকা শেষ করার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিন। সরাসরি জিজ্ঞেস করুন তার রাগ হয়েছে কি না। জানান, আজ রাতে ফের ফোন করবেন।

রাতে ফের ফোন করুন। মজার মজার কথা বলুন। ফোন রেখে দিন। পরের দুই দিন আর ফোন করবেন না। পারলে দিনের বেলাতেও এড়িয়ে চলুন।

দেখুন দুই দিন পরে পছন্দের মানুষটি নিজে ফোন করে কিনা। প্রথমে ফোন ধরবেন না। কল কাটবেনও না। কিছুক্ষণ পরে নিজেই ফোন করে বলুন ব্যস্ত থাকায় ফোনটা ধরতে পারেননি। কথা বলুন, মজা করুন।

প্রেম করার টিপস (৭) – পরের দিন যদি আপনার পছন্দের মানুষ ফোন করে ভাল, না হলে নিজেই ফোন করুন, কথার ফাঁকে বলুন কাল কোথাও খেতে যাবেন তাঁকে সঙ্গে নিয়ে। কথা বলা শেষ হলে আপনার পছন্দের মানুষকে পাঠান **ভালোবাসার এস এম এস** কিংবা **রোমান্টিক এস এম এস**। সঙ্গে তার বান্ধবীদেরও দুই একটা মজার মেসেজ পাঠান।

পরের দিন চলে যান প্রথম ডেটিং এ। এক সাথে বসে খাবার খান। ভালোবাসার কথা গুলো সঠিক সময়ে ব্যবহার করুন আর দেখুন কতো সহজেই তার মন গলে যায়। পাশাপাশি হাঁটার সময় পারলে তাঁর হাতে আঙুল দিয়ে হালকা করে ছুঁয়ে দিন। পারলে কোন গিফ্ট  কিনে দিন।

সেই রাতেই ফোন করুন,আর ফোন যদি ও প্রান্ত থেকে আসে তাহলে তো সোনায় সোহাগা। মোবাইলে এবার একটু অ্যাডাল্ট হাসি-ঠাট্টা করুন। কথার মাধ্যমে বুঝিয়ে দিন সে আপনার প্রিয়তম বন্ধু । শুধু অপরূপ চেহারা বা আকর্ষণীয় ফিগারের কারণেই আপনি তার প্রতি দুর্বল নন, নিজের একান্ত আপন বন্ধু হিসেবেও আপনি তাকে পেতে চান। আপনার এ  বোধ প্রকাশ করতে পারলে তার কাছে আপনি আরো বেশি আপন হয়ে উঠবেন। এরপর বুঝে শুনে সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যান,কারণ আর একটু হাঁটলেই সেই মহেন্দ্রক্ষণকে ছুঁয়ে ফেলতে পারেন আপনি।

প্রেম করার টিপস

প্রেম করার টিপস হিসাবে যে বিষয় গুলো জানা জরুরি

আপনার পছন্দের মানুষ নরম হচ্ছে না? তাকে দাম দিন। প্রশংসা করুন তবে মেপে মেপে। তার কাজকে গুরুত্ব দিন। কোন গুণ থাকলে তার প্রশংসা করুন। পোষা প্রাণী থাকলে ওটারও প্রশংসা করুন।

আপনার প্রিয় মানুষটি খুব গম্ভীর হলে ঘন ঘন তাকান তার দিকে। বাছাই করা জোকস দিয়ে রসিকতা করুন। হাসুন। হাসতে দিন। হাসি মুখ যে কাউকে আকর্ষণ করে।

আপনার পছন্দের মানুষটি কি অতিরিক্ত কঠিন? কোন ভাবেই প্রেম হচ্ছে না? তবে উলটো পথে হাঁটুন। জানেন তো, মাইনাছে মাইনাছে প্লাস! এইবার দাম কিছুটা কম দেন। হঠাৎ দাম কমে গেলে সে কিছুটা জ্বলবেই। জ্বলে পুড়ে অঙ্গার হতে দিন। পড়ে আগুন নিভে গেলে বুঝবে আপনি ছাড়া গতি নাই!

মনে রাখবেন কারো মন বোঝা খুব কঠিন কাজ। মনের সাথে মন মিলে গেলে বলে ফেলুন – আমি তোমাকে ভালবাসি। বহুল কথিত তিনটি শব্দের এই কথা ‘আমি তোমাকে ভালবাসি’। এই তিন শব্দের যাদুতে কাবু হয় না এমন মেয়ে এই দুনিয়ায় নেই। তবে সঠিক সময়ে, সঠিক পরিবেশে এবং সঠিক ভাবে তা বলা চাই। সম্পর্কের যেকোনো পর্যায়ে এ কথা বলা যায়। তবে খুব বেশি বেশি বলাটা ভাল দেখায় না। তবে যতবার আপনি বলবেন, এক অদ্ভুত পুলকে ভরে যাবে আপনার প্রেমিকার মন। ছেলেদের পক্ষ থেকে এ কথাটি শুনতে রীতিমত অপেক্ষা করে একটি মেয়ে,বললেন এক্সপার্টরা। আপনি যতবার বলবেন ততবারই মেয়েটি অনুভব করবে আপনার  ভালোবাসা। এই কথায় বোঝা যায় আপনি তাকে ভালবাসেন, ভালবাসবেন এবং আরো বেশি ভালবাসতে চান।

259 total views, 1 views today

এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন