কোরাল মাছ রান্না করুন একটু ভিন্ন স্বাদে

কোরাল মাছ রান্না করুন একটু ভিন্ন স্বাদে
5 (100%) 1 vote

কোরাল মাছ খেতে আমরা সবাই ভালোবাসি। কোরাল মাছ যেমন সুস্বাদু তেমনি পুষ্টিকর। কোরাল মাছে কাটার পরিমান কম থাকায় অনেকের কাছেই এই মাছ খুবই পছন্দের এবং এর স্বাদও অতুলনীয়। বাংলাদেশে সাধারণত দুই ধরনের মাছ রান্না হয়ে থাকে, কিছু অঞ্চলে প্রথমে মাছ ভেঁজে তার পর রান্না করেন আবার কিছু অঞ্চলে সরাসরি মাছ রান্না করে ফেলেন, দুটোতে তেমন কোন তফাৎ নেই! তাহলে আজকে দেখে নিন কোরাল মাছের ভিন্ন স্বাদের সব রেসিপি গুলো।

কোরাল মাছ

কোরাল মাছ বারবিকিউ

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

উপকরণ : মাঝারি আকারের কোরাল মাছ ১টি, রসুন কুচি ১ কাপ, আদা লম্বা ঝুরি করে কাটা আধা কাপ, ধনিয়া পাতা (টুকরা করে নেওয়া) আধা কাপ, সাদা গোলমরিচের গুঁড়া ১ চা চামচ, তিলের তেল ১ চা চামচ, লাইট সয়াসস দেড় চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১টি, লবণ সিকি চা চামচ, সয়াবিন তেল ২ টেবিল চামচ, সবুজ ক্যাপসিকাম লম্বা ঝুরি করে কাটা ১টি, লেবুর স্লাইস ৫টি।

প্রস্তুত প্রণালী : মাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে কিচেন টিস্যু পেপার দিয়ে মুছে নিন। এবার মাছটিকে কাঁটা চামচ দিয়ে ভালো করে কেচে রাখুন। এরপর লেমন গ্রাস ও ক্যাপসিকাম ছাড়া সব মসলা ভালো করে মাছে মেখে নিন। আধা ঘণ্টা মেরিনেটের জন্য রেখে দিন। এবার মাছের গায়ে তেল ব্রাশ করে বারবিকিউ চুলায় দিয়ে বারকিউ করুন। মাছের এক পিঠ হয়ে গেলে বাকি তেল ব্রাশ করে উল্টে দিন। ক্যাপসিকাম হালকা স্টিম করে নিন। পরিবেশন পাত্রে মাছ রেখে ধনিয়া পাতা ও ক্যাপসিকাম দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

টমেটো দিয়ে কোরাল মাছ রান্না

উপকরন – কোরাল মাছ ৪ টুকরা,টমেটো ৪-৫ টা,পেয়াজ বাটা ২ টে চামচ,আদা বাটা ২ চা চামচ,হলুদ গুড়া ১ চা চামচ,মরিচ গুড়া ১/২ চা চামচ,পাঁচফোড়ন ১/২ চা চামচ,কাঁচামরিচ ৪ টা,ধনিয়া পাতা কুচি ২ টে চামচ,লবন পরিমান মতো,চিনি ১/৭ চা চামচ,তেল ৪ টে চামচ।

প্রস্তুত প্রণালী – টমেটো গুলো লম্বায় চার ফালি ককরে কেটে ধুয়ে রাখুন। এবার প্যান এ ২ টে: চামচ তেল গরম করে মাছের টুকরা গুলো ১/২ চা চামচ হলুদ গুড়া ও পরিমান মতো লবন দিয়ে মেখে হালকা করে ভেজে তুলুন। এবার বাকি তেল টুকু প্যানে দিয়ে তাতে পাঁচফোড়ন ও একটা কাঁচামরিচ ফোড়ন দিয়ে তাতে পেয়াজ বাটা, আদা বাটা, দিয়ে কষিয়ে হলুদ গুড়া, মরিচ গুড়া, লবন, চিনি দিয়ে নেড়ে টমেটো গুলো দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন এবং চুলার আচ কমিয়ে দিন। ২ মিনিট পর ঢাকনা খুলে ভাল করে নেড়ে ১ কাপ পানি দিন ফুটে উঠলে মাছের টুকরা গুলো দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। নামানোর আগে ধনিয়া পাতা ও কাঁচামরিচ দিয়ে নামান।

কোরাল মাছ ফিশ বল

উপকরণ : কোরাল মাছ সিদ্ধ করে কাঁটা ছাড়ানো ১ কাপ, গরম ভাত আধা কাপ, কাঁচামরিচ ৪টি, আদা-রসুন বাটা ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, ডিম ১টি, টোস্ট বিস্কুটের গুঁড়া পরিমাণমতো, গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, ফিশ সস ১ চা চামচ, চিলি সস ১ চামচ, তেল ভাজার জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : কোরাল মাছ ও গরম ভাত ভালো করে চটকে নিন। এবার তেল, ডিম ও টোস্টের গুঁড়া বাদে সব উপকরণ এক সঙ্গে মিশিয়ে নিন। এবার গোল গোল বল বানিয়ে নিন। ডিমে ডুবিয়ে টোস্টের গুঁড়ায় গড়িয়ে ফ্রিজে আধা ঘণ্টা রেখে দিন। গরম তেলে ভেজে পরিবেশন করুন।

কোরাল মাছ কাবাব

উপকরণ : কোরাল মাছ এর পিঠের অংশ ৪ টুকরা, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাঁচামরিচ কুচি ২-৩টি, ফিশ সস ১ টেবিল চামচ, সয়া সস ১ চামচ, টমেটো হট সস ২ টেবিল চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া ১ চামচ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, আদা-রসুন বাটা ১ চামচ, তেল ভাজার জন্য, লবণ স্বাদমতো, ডিম ১টি, চিনি ১ চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ১ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি : কোরাল মাছ ডিম ও তেল ছাড়া সব উপকরণ দিয়ে মেখে আধা ঘণ্টা রেখে দিন। এবার সামান্য পানি দিয়ে মাছ সিদ্ধ করে কাঁটা বেছে নিন। প্যানে সামান্য তেল দিয়ে ভেজে নিন। ঠাণ্ডা হলে কর্নফ্লাওয়ার ও ডিম মেখে কাবাব তৈরি করুন। তেলে ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন সুস্বাদু কোরাল মাছ কাবাব।

কোরাল মাছ ভূনা

উপকরন – কোরাল মাছ ৬ টি,লবন পরিমান মত,হলুদ গুড়া ১/২ চা চামচ,মরিচ গুড়া ১/২ চা চামচ, জিরা গুড়া ১ চা চামচ,পেঁয়াজ কুচি ১টি ছোট,পেঁয়াজ বাটা ১চা চামচ,রসুন বাটা ১ চা চামচ,কাচা মরিচ ফালি করা ৩-৪ টি,
ধনেপাতা কুচি ১ মুঠ,পানি ১ কাপ।

প্রস্তুত প্রণালী – একটা কোরাল মাছ পরিস্কার করে, ভাল করে ধুয়ে লবন,হলুদ, লেবুর রস দিয়ে মাখিয়ে ধুয়ে নিন। এখন, মাছের সাথে গুড়া মশলা, লবন, বাটা পেঁয়াজ,রসুন দিয়ে মাখিয়ে ৫ মিনিট রাখুন। এবার,প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজুন রং পরিবর্তন হলে মাখানো মাছ গুলো বসিয়ে দিন। চুলার আছ মিড়িয়াম রাখুন। কোরাল মাছ মাখানো বাটিতে ১ কাপ পানি দিয়ে মশলা গুলো গুলে রাখুন। মাছের এক পিঠ একটু ভাজা হলে উলটে দিন। এক মিনিট পর মশলা পানিটুকু দিয়ে,প্যানকে হাতে নাড়া দিন। এবার ঢেকে রান্না করুন মাছ ভুনা ভুনা হওয়া পর্যন্ত। দুই মিনিট পর কাচমরিচ ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে দিন।

মাছের পানি শুকিয়ে আসলে,চুলার আচ মিড়িয়াম থেকে কমিয়ে রাখুন। মাছ গুলো কম আচে আরেকটু ভুনা ভুনা করে নামিয়ে নিন। গরম ভাতে পরিবেশন করুন মজাদার কোরাল মাছ ভুনা।

কোরাল মাছ ফিশ ফিঙ্গার

উপকরণ : কোরাল মাছ ২-৩ টুকরা, পাউরুটি ভেজানো ৩ টুকরা, কাঁচামরিচ ২-৩টি, গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, আদা রসুন বাটা ১ চা চামচ, ডিম ১টি, কর্নফ্লাওয়ার ১ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ১ চা চামচ, ফিশ সস ১ চা চামচ, জিরা গুঁড়া আধা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, টোস্ট বিস্কুটের গুঁড়া, ব্রেডক্রাম পরিমাণ মতো, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : মাছের টুকরা গুলো লবণ দিয়ে সিদ্ধ করে কাঁটা বেছে নিন। এবার ডিম, ব্রেডক্রাম, তেল বাদে সব উপকরণ দিয়ে ভালো করে মেখে ফিঙ্গারের আকারে গড়ে নিন। এবার ডিমে ডুবিয়ে বিস্কুটের গুঁড়ায় গড়িয়ে গরম তেলে ভেজে সস দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

কোরাল মাছ ফিশ ললিপপ

উপকরণ : কোরাল মাছ ১ কাপ, আলু সিদ্ধ ১টি, পাউরুটি ২ টুকরা, গোলমরিচ ১ চামচ, চিনি সস ২ টেবিল চামচ, লেবুর রস আধাটি, মরিচ গুঁড়া আধা চামচ, ময়দা আধা কাপ, কর্নফ্লাওয়ার ১ টেবিল চামচ, সয়া সস ১ চামচ, ফিশ সস ১ চামচ, তেল ভাজার জন্য, লবণ পরিমাণ মতো।

প্রস্তুত প্রণালি : মাছ সিদ্ধ করে কাঁটা বেছে নিন। তেল ও ময়দা ছাড়া সব উপকরণ দিয়ে মেখে ললিপপের আকারে গড়ে নিন। ময়দা পরিমাণমতো পানি দিয়ে গুলে নিন। লবণ ও গোলমরিচ দিন। ললিপপ গুলো ময়দায় ডুবিয়ে তেলে ভেজে তুলুন। গাজর দিয়ে সাজিয়ে মজাদার কোরাল মাছ পরিবেশন করুন।

কোরাল মাছ কাটলেট

উপকরণ : কোরাল মাছ ৪ টুকরা, আলু ২টি, কাঁচামরিচ কুচি ২-৩টি, গোলমরিচ গুঁড়া দেড় চা চামচ, আদা বাটা আধা চা চামচ, কর্নফ্লাওয়ার ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, হলুদ মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, ডিম ১টি, ব্রেডক্রাম পরিমাণ মতো, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : মাছের টুকরা গুলো লবণ, হলুদ ও মরিচের গুঁড়া দিয়ে সিদ্ধ করে কাঁটা বেছে নিন। এবার প্যানে সামান্য তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি, কাঁচামরিচ কুচি দিয়ে হালকা ভেজে আদা-রসুন দিন, এবার তেল, ডিম ও ব্রেডক্রাম বাদে সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে নিন। ভালো করে মেখে কাটলেট আকারে গড়ে নিন। কাটলেট গুলো ডিমে চুবিয়ে বিস্কুটের গুঁড়ায় গড়িয়ে ফ্রিজে ১৫ মিনিট রেখে দিন। তেল গরম করে কাটলেট গুলো ভেজে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

62 total views, 1 views today

এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে

About অনন্যা মিতু

রক্তের সর্ম্পক ছাড়া যদি আর কোনো ঘনিষ্ট কোনো সর্ম্পক থাকে সেটা হলো বন্ধুত্ব।ভাগ্য তোমার আত্মীয় বেছে দেয় আর তুমি বেছে নাও তোমার বন্ধু।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন